Design a site like this with WordPress.com
Get started

সম্পাদকীয়

কবিতা আবেগী, এমনটা অনেকেই বলেন। তবে আবেগহীন নৈর্ব্যক্তিকতা মাত্রেই কবিতা নয়, এমনটাও নয়। আবেগ এবং আবেগহীনতার মধ্যে এক অদ্ভুত ভারসাম্য রক্ষা করে চলতে হয় কবিকে। কবিতা মুক্তি। তা বলে কবিতা জীবন থেকে মুক্তি কখনোই নয়, মৃত্যু থেকে মুক্তি এমনটাও নয়। তাই কবিতা আত্মহত্যা প্রবণতা থেকে মুক্তি দিতে পারে এমনটাও সঠিকভাবে বলা চলে না। কবিতা কবিকেContinue reading “সম্পাদকীয়”

পার্থজিৎ চন্দ

চৈত্রের শালবনের মাথার উপর চাঁদ উঠেছিল একদিন, একদিন শালজঙ্গল থেকে ছুটে আসা রোদে-পোড়া লালমাটির গন্ধ হারিয়ে গিয়েছিল সন্ধ্যা-বাতাসের ভেতর। কিশোর বয়সের সে এক পুরুলিয়া, মাথার উপর ফুটে উঠেছিল হাজার হাজার তারার দল। দৃশ্যটির দিকে তাকিয়ে আজ আর বলা সম্ভব নয় সেটি পূর্ণ, না শূন্যের আদল ধরে রেখেছিল। তবে তার দিকে তাকিয়ে স্পষ্ট বোঝা যায়, সেদিনContinue reading “পার্থজিৎ চন্দ”

মৃণালেন্দু দাশ

অন্ধকার থেকে আলোয় নিয়মিত আসতেন একজন লোক , লম্বা এবং খুব কালোশুধু ঝকঝকে সাদা দাঁত যেন সারি সারি জুঁইফুটে আছে রাত্রির নির্জনে নিঝুম চারিধার প্রশস্ত গ্রীবায় জ্যোৎস্নার শুভ্র রিবন এ সময় তিনিএকাকী উলঙ্গ হতেন নদীর পাড়েআর এক কোমড় জলে ঠায় রাত্রি তৃতীয় প্রহর পর্যন্তদুই হাত উপরে তুলে দাঁড়িয়ে থাকতেননক্ষত্রের চোখে চোখ রেখে তার শরীরে তখনContinue reading “মৃণালেন্দু দাশ”

পিয়াংকী 

ঘুমের দানাপানি ১ রোদ খুঁটে খুঁটে নিচ্ছি। বৃত্তের চারদিকে থৈথৈ করছে জলযেদিকে তাকানোর কথা ছিল, সে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে জনতাএখন আমি একটা গাছের নীচে দাঁড়িয়ে থাকি বৃষ্টি বা সুনামি স্পর্শ করতে পারে না কিছুইঅথচ আমার চোখের সামনেই দড়ির ওপর দিয়ে হেঁটে যায় অসংখ্য পিঁপড়ে খাদ্য খাদক থেকে শুরু করে জলীয়বাষ্প মেঘ…সবটুকু স্পষ্ট দেখতে হলেContinue reading “পিয়াংকী “

গৌতম কুমার গুপ্ত

ছায়া শুনতে পাই পায়ের ছায়াদরজা খুলে দেখিহাওয়ার গানে সুর মেলে দেয়একটি দুটি পাখি ফুলের গায়ে ঝুলে থাকেউপভোগের সুগন্ধথাকতে যদি কাছাকাছিহয় কি তা মন্দ? নদীর উজান বর্ষামুখরসুপ্ত হৃদয় তপ্তদুয়ারে আজ দ্বার খুলেছিহৃদয় আমার মুক্ত দাও মেলে দাওপাখির উড়ান ইচ্ছে ডানাআকাশনীলে স্বচ্ছতোয়ায়হারিয়ে যেতে নেই মানা কাঁচসমগ্র আমার একলা কাঁচের দৃষ্টিপথঝনঝনিয়ে ভাঙল যখনতোমার তখন মধ্যরাতহাতড়ে বেড়াই দৃশ্য খুঁজিদৃষ্টিContinue reading “গৌতম কুমার গুপ্ত”